সুনামগঞ্জে চলন্ত বাসে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা করে চালক শহীদ ও তার দুৃই সহকারি: সিআইডি

image_pdfimage_print

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে সিলেট থেকে দিরাইগামী যাত্রীবাহী বাসে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনায় দায়রে হওয়া মামলার প্রধান আসামি বাস চালক শহীদ মিয়াকে (২৬) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।
গ্রেপ্তার বাস চালক সিলেটের জালালাবাদের মোল্লা গাঁও গ্রামের তৌফিক ওরফে মইন্নার ছেলে। রোববার দুপুরে রাজধানীর মালিবাগে সিআইডি কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সংস্থার অতিরিক্ত ডিআইজি হাফিস আজিজ বলেন, শনিবার ভোরে সুনামগঞ্জ এলাকা থেকে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়।
সিআইডি জানায়, গত ২৬ ডিসেম্বর ফাহাদ এন্ড মায়শা পরিবহন ( সিলেট জ -১১০২২৩ ) বাসটি সিলেট থেকে সুনামগঞ্জের দিরাইয়ের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে এবং দুপুর অনুনানি ২ টার দিকে সুনামগঞ্জ পৌছায় । এরপর সুনামগঞ্জ হতে দিরাইয়ের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে । বাসের চালক ছিলেন শহীদ মিয়া। ওই দিন ভিকটিমকে তার দুলাভাই সিলেটের লামাকাজি নামক স্থান থেকে সুনামগঞ্জের দিরাইপুর যাওয়ার জন্য উল্লেখিত বাসটিতে তুলে দেন। পথে সকল বাসযাত্রী একে একে নেমে যায়। এরপর বাসটি দিরাইয়ের পাতারিয়ায় পৌঁছালে চালক শহীদ মিয়া ভিকটিমকে চলন্ত বাসে ধর্ষণের চেষ্টা করে ।
এ সময় ভিকটিম আত্মরক্ষার্তে চিৎকার শুরু করেন। ভিকটিমের চিৎকার শুনে সুজানগর গ্রামসহ আশপাশের লােকজন গাড়িটি আটকের চেষ্টা করে । পরিস্থিতি বেগতিক দেখে চালক শহীদ মিয়া ভিকটিমকে হত্যার উদ্দেশ্যে চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় । যার ফলে রাস্তায় পড়ে ভিকটিম গুরুতর আহত হন । পথ যাত্রীরা ভিকটিমকে উদ্ধার করে সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে পাঠায় । এ ঘটনায় বাস চালক হেলপারসহ ৩ জনকে আসামী করে দিরাই থানায় মামলা হলে সিআইডি ছায়া তদন্ত শুরু করে। সিআইডি সদর দপ্তর থেকে আসামী গ্রেপ্তােেরর জন্য সাঁড়াশি অভিযান শুরু হয় ।

[১] কোভিড-১৯ নিয়ে অফিস করেছেন সরাইলের মৎস্য কর্মকর্তা, উপস্থিত ছিলেন অনুষ্ঠানেও ≣ চলতি মাসের শেষ নাগাদ তালেবানের পক্ষ থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে শান্তিচুক্তির আহ্বান ≣ [১] নিজ শিশুসন্তানই হত্যাকারী মাকে ধরিয়ে দিল পুলিশের কাছে
[৫] অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তাধরের নেতৃত্বে গঠিত চৌকষ দল দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায়। এক পর্যায়ে শহীদের ছােট ভাই কছির ও দুলাভাই সুমনকে আটক করা হয় । তাদের দেয়া তথ্যে শহীদের অবস্থান নিশ্চিত করার জন্য ভােগড়া বাইপাস এবং উত্তরা দিয়াবাড়িতে অভিযান চালানো হয় । এক পর্যায়ে জানা যায়, আসামী শহীদ ঢাকার সায়দাবাদ থেকে বাসে করে সুনামগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে। এরপর সুনামগঞ্জের পুরাতন বাস স্ট্যান্ড থেকে মামলার প্রধান আসামীকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শহীদ মিয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন বলে জানিয়েছেন সিআইডির অতিরিক্ত ডিআইজি হাফিস আজিজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *