মা-মেয়েকে গাছে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন, গ্রেফতার ৩

image_pdfimage_print

সুদের টাকা দিতে না পারায়, মা-মেয়েকে একসঙ্গে গাছে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্মমভাবে নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে গাজীপুরের কালিয়াকৈরে এলাকায়।
শুক্রবার দুপুরে, এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ সবুজ নামে একজনকে গ্রেফতার করে এবং গতকাল দিবাগত রাত ৩টার দিকে এই ঘটনার মূল হোতা মুক্তাসহ আরও একজনকে গ্রেফতার করে।
পুলিশ জানায়, মারপিট করতে করতে বাড়ি থেকে টেনে হিঁচড়ে মমতাজকে বের করেন কয়েকজন। এরপর রাস্তার পাশে গাছে বেঁধে চালানো হয় নির্যাতন। স্কুল পড়ুয়া মেয়ে নির্যাতনের দৃশ্য মুঠোফোনে ধারণ করতে গেলে, শুরু হয় তার উপরও অত্যাচার। এক পর্যায়ে মায়ের সঙ্গে একই রশিতে আটকে রাখা হয় মেয়েকেও। বৃহস্পতিবার সকালে কালিয়াকৈরের সিরাজপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
আটজনের নাম উল্লেখসহ বেশ কয়েকজনকে অজ্ঞাত আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী।
ঘটনার পরের দিন সবুজ এবং গতকাল রাতে মুক্তা ও শিল্পীকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং বাকিদের গ্রেফতার করার অভিযান চলছে বলে জানান কালিয়াকৈর থাকা ওসি মনোয়ার হোসেন চৌধুরী।
দেড় মাস আগে প্রতিবেশী গফুরের স্ত্রী কুলছুমের কাছ থেকে ১৭ হাজার টাকা সুদে নেন মমতাজ। সম্প্রতি গ্রাম্য সালিশেতে টাকা ফেরত দিতে একমাসের সময় বেঁধে দিলেও এর আগেই এমন নির্যাতনের শিকার হন তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *