বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর গবেষণায় আয়-ব্যয়ের তথ্য চেয়েছে ইউজিসি, করোনার কারণে গবেষণা কমেছে

image_pdfimage_print

অধিকাংশ বিশ্ববিদ্যালয়ে নেই গবেষণা ও প্রকাশনাগত বছরের বার্ষিক প্রতিবেদন তৈরির জন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে তথ্য পাঠাতে বলেছে ইউজিসি। ইউজিসির ওয়েবসাইটে এ-সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা প্রকাশ করা হয়েছে। ইউজিসিরি রিসার্চ সাপোর্ট অ্যান্ড পাবলিকেশন ডিভিশনের উপ-পরিচালক মো. শাহীন সিরাজ স্বাক্ষরিত এ-সংক্রান্ত চিঠিটি দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বরাবর পাঠানো হয়েছে।
চিঠিতে বলা হয়েছে, দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০ সালের সার্বিক কর্মকাণ্ডের তথ্য-উপাত্ত ও পরিসংখ্যান সন্নিবেশ পূর্বক ৪৭তম বার্ষিক প্রতিবেদন তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে ইউজিসি। এ উপলক্ষে দেশের সব পাবলিক এবং প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্ভুল তথ্য নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ইউজিসিতে পাঠাতে বলা হয়েছে।
বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) তাদের ৪৬তম বার্ষিক প্রতিবেদনে দেখা যায়, সরকার গবেষণাভিত্তিক উচ্চশিক্ষা বাস্তবায়ন করতে চাইলেও দেশে ৬০টির বেশি বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা কার্যক্রম নেই। পঞ্চাশের অধিক বিশ্ববিদ্যালয়ে নেই কোনো বিশেষ প্রকাশনা । ইউজিসির সদস্য অধ্যাপক ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, গবেষণা ছাড়া যেমন বিশ্ববিদ্যালয় অর্থহীন, তেমনি শুধু ইউজিসি নয়, বিশ্ববিদ্যালয়, শিক্ষক-গবেষকসহ ইন্ডাস্ট্রিগুলোকে এ কাজে এগিয়ে আসতে হবে।
তিনি বলেন, সরকার গবেষণা খাতে অর্থ বাড়াতে আগ্রহী, কিন্তু অনুকূল পরিবেশ ও পরিস্থিতি তৈরি না হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা বাড়ছে না। শুধু টাকা দিলেই গবেষণা বাড়বে না, সেটি অপচয় হওয়ার আশঙ্কা থাকে। এ খাতকে এগিয়ে নিতে গবেষকদের উৎসাহ দিতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *