বঙ্গবন্ধু গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য লড়াই করেছেন: মিয়া গোলাম পরওয়ার

image_pdfimage_print

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্থপতি। তিনি গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য লড়াই করছেন- এমন মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল মিয়া গোলাম পরওয়ার। আজ বৃহস্পতিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ২০ দলীয় জোট আয়োজিত এক স্মরণ সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।
মিয়া গোলাম পরওয়ার বলেন, স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর বিদায়ের পর এদেশে গণতন্ত্রের কথা যারা বলছেন, তারা সেই গণতন্ত্র রক্ষা করতে পারেননি। বঙ্গবন্ধু গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে গেছেন, তার উত্তরসূরিরা গণতন্ত্রকে ধ্বংস করে দিয়েছেন, হত্যা করেছেন।
তিনি বলেন, সরকার এদেশের মানুষের ভোটাধিকার, গণতন্ত্র, বাক-স্বাধীনতা, সংবাদপত্রের স্বাধীনতা হরন করেছে, দেশের সকল গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে সরকার ধ্বংস করে দিয়েছে। জামায়াত নেতা বলেন, আমি পরিষ্কার করে বলতে চাই, এই সরকার ফ্যাসিবাদী সরকার, জনগণের ভোটের মাধ্যমে তারা ক্ষমতায় আসেনি। এই সরকারের অধীনে ভোট নিরাপদ নয়।
মিয়া গোলাম পরওয়ার বলেন, দাবি ওঠেছে, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দেয়ার। এ সরকারের অধীনে স্বাধীনতা, ইসলামী মূল্যবোধ, জাতীয়তাবাদ কোন কিছুই নিরাপদ নয়। একটি বিদেশি আধিপত্যবাদের হাতে দেশকে তুলে দেয়ার জন্য তারা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে। দেশের কল-কারখানা, শিল্পপ্রতিষ্ঠান সবকিছু বিদেশী শক্তির হাতে তুলে দেয়া হচ্ছে। করোনা মহামারীর সময়ও বাংলাদেশে সীমাহীন দুর্নীতি করছে সরকার। এ সময়ে দুর্নীতি করে হাজার হাজার কোটিপতির জন্ম হয়েছে দেশে। তাই আমি বলি, একটি বিক্ষিপ্ত বিচ্ছিন্ন বিষয় নিয়ে কথা বলে আমাদের লাভ নেই। কথা একটাই। জামায়াত সেক্রেটারি জেনারেল বলেন, এই সরকারের এমন করুণ পরিণতি অপেক্ষা করছে যে, সেটা তারা চিন্তাও করতে পারছে না।
বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ২০ দলীয় জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীক, জামায়াতে ইসলামীর নেতা আবদুল হালিম, জাতীয় পার্টির (একাংশ) চেয়ারমান মোস্তফা জামাল হায়দার, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, জাগপা’র (একাংশ) খোন্দকার লুৎফর রহমান, এনপিপির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, জাতীয় দলের চেয়ারম্যান এড. এহসানুল হুদা, খেলাফত মজলিসের মহাসচিব আবদুল কাদের, ন্যাপ ভাসানীর চেয়ারম্যান এড. আজহারুল ইসলাম প্রমূখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *