পহেলা নভেম্বর থেকে ১ লাখ ৪০ হাজার হাজি ওমরা পালন করেছে

image_pdfimage_print

ধীরে ধীরে সৌদি আরবে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসায় এবং কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলায় ওমরাপালনকারীদের সংখ্যা বাড়ছে। ওমরা শুরু হবার পর তৃতীয় পর্যায়ে এসব হাজি ওমরা পালন করে এবং এসময় তাদের নির্দিষ্ট শারীরিক দূরত্ব মেনে চলা নিশ্চিত করা হয়।
করোনাভাইরাস মহামারী শুরু হবার পর কাবা শরীফ তাওয়াফ ও নামাজ পড়া সাত মাসের জন্যে বন্ধ ছিল। প্রতীকী হজে সৌদি আরবে অবস্থানকারী বিভিন্ন দেশের নাগরিকরা অংশ নেয়। এরপর প্রথমে সৌদি নাগরিক ও সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনার পর অন্য দেশের নাগরিকদের জন্যে পর্যায়ক্রমে কাবা শরীফ খুলে দেয়া হয়।
গত পহেলা নভেম্বর ইন্দোনেশিয়া থেকে প্রথম একদল হাজি ওমরা হজ করতে আসেন সৌদি আরব। ওমরার পূর্বে হোটেলে তাদের তিনদিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়।
করোনাভাইরাস মহামারীতে পুনরায় কাবা শরীফ খুলে দেয়ার পর তৃতীয় পর্যায় পর্যন্ত ৪ লাখ ২০ হাজার মানুষ সেখানে তাওয়াফ ও নামাজ আদায় করেছে।
গত ৪ অক্টোবর কাবা শরীফে প্রথম তাওয়াফ ও নামাজ আদায় হয়। ওইদিন থেকে প্রতিদিন ৬ হাজার মানুষ কাবা শরীফে এবাদত করে আসছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *