নিজ ও পরিবারকে ক্ষমা করার উপায় খুঁজতে আইনজীবীর দ্বারস্ত হয়েছেন ট্রাম্প

image_pdfimage_print

ওয়াশিংটন ডিসির অ্যাটর্নী জেনারেল মাইকেল শেরউইন বলেছেন, ক্যাপিটলে যারা হামলা চালিয়েছেন তারা ১০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ডের সম্মুখীন হতে পারেন। এমনকি সহিংসতা উস্কে দেয়ায় অভিযুক্ত হতে পারেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও। স্থানীয় সময় বুধবার বিকেলের ওই হামলায় একজন পুলিশ কর্মকর্তাসহ ৪জন নিহত হয়েছেন।
কয়েকটি সূত্রের বরাত দিয়ে মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে হোয়াইট হাউসের কাউন্সেল প্যাট ক্লিপোলোনসহ নিজের অন্যান্য পরামর্শক ও ব্যক্তিগত আইনজীবী রুডি গিলানির কাছে নিজকে ক্ষমা করার বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন ট্রাম্প। সেইসঙ্গে ট্রাম্প তার কন্যা ইভানকা ট্রাম্প, জামাতা জ্যারেড কুশনার, পুত্র ডোনাল্ড জুনিয়র সহ হোয়াইট হাউসের অন্যান্য পরামর্শক ও দুই সেলিব্রেটিকে ক্ষমা করতে চাইছেন।
এক সূত্র বলেছে, ট্রাম্পের টুইট ও সাম্প্রতিক মন্তব্যের কারণেই ক্যাপিটলে তার সমর্থকরা দাঙ্গা বাঁধিয়েছেন কি না কিংবা গত সপ্তাহে জর্জিয়ায় গর্ভনর ব্র্র্যাড রাফায়েনস্পেগারকে করা ফোন কলের কারণেই এই ঘটনা ঘটেছে কি না তা স্পষ্ট নয়। নিজকে ক্ষমা করার আইনী এবং রাজনৈতিক পরিণতি কি হবে তা সম্পর্কেও বিস্তারিত জানতে চেয়েছেন।
নিউইয়র্ক টাইমের প্রতিবেদনে বলা হয়, নির্বাচনের পর থেকেই নিজকে ক্ষমা করার বিষয় নিয়ে খোঁজখবর নিচ্ছেন ট্রাম্প। এখন পর্যন্ত প্রেসিডেন্টের নিজকে ক্ষমা করা করার বিষয়টি অপরীক্ষিত এবং সাংবিধানিকভাবে বিষয়টি নিয়ে বিশেষজ্ঞরাও অবিভক্ত। তবে মার্কিন বিচার বিভাগের আইনী মেমোতে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্ট নিজকে ক্ষমা করতে পারেন না কিন্তু তিনি নিজে পদত্যাগ করে ভাইস-প্রেসিডেন্টকে দায়িত্ব নিতে বলতে পারেন ও তাকে ক্ষমা করতে বলতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *