নতুন বছরে কোভিডের বিরুদ্ধে হার্ড ইমিউনিটি তৈরি হবে না, সতর্ক করল WHO

image_pdfimage_print

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিজ্ঞানীরা বলেছেন, বিপুল জনগোষ্ঠীকে টিকা দেওয়া সম্ভব হলেও এবছরেও কোভিডের বিরুদ্ধে হার্ড ইমিউনিটি তৈরি হবে না। বিশ্ব জুড়ে কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। ইউরোপে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে সবচেয়ে দ্রুত হারে। বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে।
হু-এর প্রধান বিজ্ঞানী সৌম্যা স্বামীনাথন সোমবার বলেন, করোনা মহামারী প্রতিরোধে এখনও সময় লাগবে। করোনায় এ পর্যন্ত বিশ্ব জুড়ে আক্রান্ত হয়েছে ৯ কোটি মানুষ। মারা গিয়েছেন ২০ লাখ। সৌম্যা স্বামীনাথন বলেন, এ বছরেও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, ঘন ঘন হাত ধোঁয়া এবং মাস্ক পরার পরামর্শ দেন তিনি।
ভারতে টিকা দেওয়া শুরু হবে ১৬ জানুয়ারি থেকে। প্রথম ৩০ কোটি মানুষকে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। ডাক্তার, স্বাস্থ্যকর্মী তথা কোভিড ফ্রন্টলাইন ওয়ার্কারদের (পুলিশ, পৌরসভার কর্মীরা) টিকা দেওয়ার পর প্রবীণ ও কোমর্বিডিটির রোগীরা টিকার অগ্রাধিকার পাবেন। ৫০ বছরের কম যাদের শরীরে ক্রনিক রোগ রয়েছে তাদেরও রাখা হয়েছে টিকা অগ্রাধিকারের তালিকায়। চার ক্যাটাগরিতে হবে টিকাদান কর্মসূচি। ৩০ কোটি মানুষকে ভ্যাকসিনের দুটি করে ডোজ দিতে মোট ৬০ কোটি ডোজ দরকার পড়বে। এই বিপুল পরিমাণ ডোজ সেরাম ইনস্টিটিউট ও ভারত বায়োটেক তৈরি করবে। দুই সংস্থাই জানিয়েছে, তারা একজোট হয়ে টিকার উৎপাদন ও বিতরণ করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *