তিন কারণে মিডিয়া ছাড়বেন সিদ্দিক

image_pdfimage_print

সিদ্দিকুর রহমান সিদ্দিক একজন বাংলাদেশি টেলিভিশন অভিনেতা। তিনি এক পর্বের টেলিভিশন নাটক ও ধারাবাহিকে বেশিরভাগ সময় কমেডি চরিত্রে অভিনয় করেন। এই কমেডি অভিনয়ের মাধ্যমেই তিনি জিতে নিয়েছেন লাখো ভক্তের মন।
পর্দায় সিদ্দিকুর রহমান যতটা হাস্যজ্জল বাস্তবেও তার ভিন্ন কিছু নয়। অসম্ভব পরোপকারী একজন ব্যক্তি তিনি। করোনাকালে অনেক অসহায় মানুষকেই তিনি আর্থিক সহায়তা করেছেন। তবে এসব সহায়তার কোনো কিছুরই প্রচার তিনি করেননি।
টাংগাইল মধুপুর এলাকার অনেক উন্নয়নমূলক কাজেও তার অবদান রয়েছে। তার নামে একটি ঈদগাহ মাঠ রয়েছে। এছাড়া তার নামে একটি ছাত্রাবাসও নির্মাণ হচ্ছে। যার সম্পূর্ণ খরচ তিনি নিজেই বহন করছেন।
প্রচণ্ড পরিমান মা ভক্ত একজন মানুষ তিনি। সব কাজের আগেই মায়ের অনুমতি নেন তিনি। মাও তাকে অনেক ভালোবাসেন। তার সব কাজেই তাকে উৎসাহ দেন। অন্যদিকে বাবার প্রতিও তার ছিল অসীম শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা।
সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, বাবার দেয়া তিন কথা রাখতেই তিনি মিডিয়া ছাড়তে চান। মারা যাওয়ার আগে বাবা তাকে তিনটি কথা বলেছিল। যা তিনি পূরণ করতে চান।
প্রথম কারণ সিদ্দিক বলেন, বাবা বলেছিল- ‘তুমি যত তাড়াতাড়ি পার মিডিয়া ছেড়ে দিও। মিডিয়া তোমাকে ছাড়তে হবে, কারণ তোমাকে মরতে হবে।’ পরকালের কথা চিন্তা করেই তাকে মিডিয়া ছাড়ার কথা বলেছিলেন বাবা।
তিনি আরো বলেন, ‘মিডিয়া তোমাকে একবারে ছাড়তে হবে তেমনটা না, মানুষের উপকারে আসে এমন কাজ মিডিয়ায় থেকে তুমি করতে পার।’
দ্বিতীয় কারণ, তার বাবা বলেছিল, জনগণের জন্য যেন তিনি এমপি পদে নির্বাচন করেন। জনগণের সেবা করেন।
তৃতীয় কারণটি জিজ্ঞেস করা হলে তিনি জানান, এই কারণটি জানানো যাবে না। কারণ তা একান্ত গোপনীয়।
১৯৯৯ সালে নাটকের দল থিয়েটারে অভিনয়ের মাধ্যমে মঞ্চে অভিষেক ঘটে সিদ্দিকের। এসময় থিয়েটারের অধীনে তিনি বলদ, হাজার পোশাকী রাজার গল্প, পেজগীসহ বেশকিছু নাটকে অভিনয় করেন। এরপর তারিক আনম খানের নির্মিত একটি চকলেটের বিজ্ঞাপনে অংশগ্রহণের মাধ্যমে শোবিজে আগমন করেন কিন্তু তখন তিনি মূলত সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করতেন।
২০০৫ সালে দীপংকর দীপন নির্মিত “রৌদ্র ও রোদেলার কাব্য” নাটকে “কাউয়া সিদ্দিক” চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে তিনি নাটকে অভিনয় শুরু করেন। পরবর্তিতে ফাহামির পরিচালনায় কবি বলেছেন ও ধারাবাহিক নাটক হাউসফুলের মাধ্যমে তিনি জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। ২০১৩ সালে তিনি আরটিভির প্রযোজনাতে “এইতো ভালোবাসা” নামের একটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *