চাকরি করার অপরাধে আফগান নারী পুলিশ কর্মকর্তাকে গুলি ও চোখে ছুরিকাঘাত

image_pdfimage_print

৩৩ বছরের আফগান নারী পুলিশ কর্মকর্তা খাতেরাকে অন্ধ করে ছাড়ল সন্ত্রাসীরা। গজনি প্রদেশের একটি থানা থেকে বের হওয়া মাত্রই মটরসাইকেলে করে তিন সন্ত্রাসী এসে তাকে গুলি ও ছুরিকাঘাত করে। হাসপাতালে যখন জ্ঞান ফেরে খাতেরার তখন এই দুনিয়া তার কাছে অন্ধকার ছাড়া আর কিছু নয়।
চিকিৎসকদের খাতেরা জিজ্ঞেস করেন সে আর দেখতে পারবে কি না, চিকিৎসকরা জানায় চোখে ব্যান্ডেজ রয়েছে, না খোলার পর কিছু বলা যাচ্ছে না। তারপর খাতেরা জেনে যান তার চোখ চিরতরে বিনষ্ট হয়ে গেছে।
খাতেরা ও স্থানীয় কর্তৃপক্ষ জানায় তালেবানরা চাকরি করার জন্যে এ হামলা চালিয়েছে। তালেবানরা এ হামলার বিষয়টি অস্বীকার করেছে কিন্তু খাতেরার বাবা তার মেয়েকে বাড়ির বাইরে চাকরি করতে যেতে নিষেধ করেছিল কিন্তু তার স্বামীর পরামর্শেই পুলিশে যোগ দেন খাতেরা।
সন্ত্রাসীরা খাতেরার দৃষ্টিশক্তির সাথে তার স্বপ্নকেও চুরমার করে দিয়েছে। স্বাধীন পেশা হিসেবে খাতেরা কয়েকমাস আগে গজনি পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চে যোগ দিয়েছিলেন।
অন্ধ হবার পরও খাতেরা ফের অন্তত এক বছরের জন্যে কাজ করতে চাচ্ছেন। তাহলে তার এ বেদনা কিছুটা লাঘব হবে বলে মনে করেন খাতেরা।
সম্প্রতি তালেবানদের পক্ষ থেকে বলা হয় তারা নারীদের অধিকার ও মর্যাদায় বিশ্বাসী। কিন্তু তারা নারীদের শিক্ষা ও পরিচয়পত্রে মায়ের নাম অন্তর্ভুক্ত করার বিষয়ে বিরোধিতা করছে।
এ্যামনেষ্টি ইন্টারন্যাশনালের আফগান কর্মী সামিরা হামিদি বলেন তালেবানদের সঙ্গে চুক্তির পর গত এক দশকে নারীর অধিকার রক্ষায় যে সব পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে তা বাতিল হয়ে যেতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *