ক্ষমতা হস্তান্তর করা হয়েছে কমান্ডার-ইন-চিফ মিনকে, ঘোষণা মিয়ানমার সেনাবাহিনীর, হস্তক্ষেপের হুমকি যুক্তরাষ্ট্রের

image_pdfimage_print

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর ঘোষণায় বলা হয়েছে নির্বাচনে জালিয়াতির কারণে প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট ও স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চি ও অন্যান্য সিনিয়র নেতাদের আটকের পর ক্ষমতা হস্তান্তর করা হয়েছে কমান্ডার ইন চিফ মিন অং হ্লেইংয়ের কাছে। নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে দ্বিমত পোষণেই এ অভ্যুত্থান ঘটনানো হয়েছে।
এক বছরের জন্যে জরুরি অবস্থা ঘোষণার পর ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট দায়িত্ব পালন করবেন।
মিয়ানমারে অভ্যুত্থানের ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্র উদ্বেগ প্রকাশ করে প্রয়োজনে হস্তক্ষেপের হুমকি দিয়েছে। হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জেন সোকি প্রেসিডেন্ট বাইডেনকে মিয়ানমারের ব্যাপারে বিস্তারিত ব্রিফ করার কথা জানিয়ে এক বিবৃতিতে বলেন, মিয়ানমারের সেনাবাহিনী স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চিও অন্যান্য বেসামরিক কর্মকর্তাদের গ্রেফতার সহ দেশটির গণতান্ত্রিক উত্তরণকে হ্রাস করার যে পদক্ষেপ নিয়েছে তাতে যুক্তরাষ্ট্র শঙ্কিত।
বিবৃতিতে আরো বলা হয় মিয়ানমারের গণতন্ত্র ও গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্যে যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থন অব্যাহত রয়েছে। একই সঙ্গে আঞ্চলিক অংশীদারদের সঙ্গে সমন্বিতভাবে সামরিক বাহিনী ও অন্যান্য দলকে গণতান্ত্রিক নিয়মাবলী এবং আইরে শাসন মেনে চলার জন্যে আহবান জানিয়েছে ওয়াশিংটন। যুক্তরাষ্ট্র অবিলম্বে আটকদের মুক্তি দেওয়ার আহবান জানিয়েছে।
বিবৃতিতে আরো বলা হয় মিয়ানমারে সাম্প্রতিক নির্বাচনের ফলাফল পরিবর্তনের যে কোনো প্রচেষ্টা বা এধরনের পদক্ষেপগুলো প্রত্যাহার না করা হলে দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
ফিনান্সিয়াল টাইমসকে অং সান সু চি’র উপদেষ্টা ও অস্ট্রেলিয়ার শিক্ষাবিদ সিয়ান টার্নেল বলেন মিয়ানমারের রাজধানী নেইপেডোতে ইন্টারনেট ও মোবাইল সার্ভিস বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *