করোনার টিকা তৈরির প্রযুক্তি উন্মুক্ত করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

image_pdfimage_print

করোনা মহামারি নিয়ে আয়োজিত জাতিসংঘের এক বিশেষ সভায় তিনি এই আহ্বান জানান। জাতিসংঘের সদর দপ্তরে আয়োজিত সভায় শুক্রবার বাংলাদেশ সময় ভোর পৌনে তিনটায় ভার্চ্যুয়ালি যোগ দিয়ে, তিন দফা প্রস্তাব তুলে ধরেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী।
প্রধানমন্ত্রীর এই তিন দফা প্রস্তাবের মূল বক্তব্য, বিশ্বর বিভিন্ন দেশে উদ্ভাবিত করোনা ভাইরাসের মানসম্পন্ন টিকাগুলো সঠিক সময়ে, স্বল্প মূল্যে প্রতিটি মানুষের জন্য নিশ্চিত করা, উদ্ভাবিত ভ্যাকসিনগুলো ট্রিপস চুক্তির আওতায় মেধা স্বত্ব উন্মুক্ত করা এবং করোনা মহামারির কারণে উন্নয়নশীল দেশগুলো যে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হচ্ছে তার স্বীকৃতি ঘোষণা করা। সে সঙ্গে উন্নয়নশীল দেশগুলোতে স্থানীয়ভাবে টিকা তৈরির উপর জোর দিয়ে তিনি বলেন, সুযোগ পেলে করোনা ভাইরাসের টিকা তৈরির সক্ষমতা বাংলাদেশের রয়েছে।
করোনাভাইরাসের কারণে এখন পর্যন্ত বৈশ্বিক বিপর্যয়গুলো তুলে ধরে মন্তব্য করেন, এই মহামারি পৃথিবীকে আবারও পিছিয়ে দিলেও পুরো বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধ হবার সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে। শেখ হাসিনা বলেন, এটি এমন একটি ভাইরাস যা বিশ্বজুড়ে নিয়ন্ত্রণে না আনলে কোন একক অঞ্চলে নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব নয়। আর তাই এই বৈশ্বিক মহামারি ঠেকাতে নতুন করে তিনটি সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব তুলে ধরেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী।
করোনা মহামারি ঠেকাতে বিশ্ব নেতাদের এক প্ল্যাটফর্মে নিয়ে আসতেই জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের এই ৩১তম বিশেষ অধিবেশন আয়োজন করা হয়। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখন জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। তিনি বলেন, এই বৈশ্বিক মহামারি ঠেকাতে পুরো বিশ্বকে এক হয়ে কাজ করার বিকল্প নেই।যুক্তরাষ্ট্রে জাতিসংঘের সদর দপ্তরে মূল আয়োজন হলেও সদস্য দেশগুলোর রাষ্ট্র বা সরকার প্রধানরা নিজ নিজ দেশ থেকেই ভার্চ্যুয়ালি এই সভায় যোগ দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *