আমারে মাইরেন না; আমি আর নিউজ করব না, উদ্ধারের পর গোলাম সরোয়ার

image_pdfimage_print

নিজস্ব প্রতিবেদক
চট্টগ্রাম থেকে নিখোঁজ হওয়া সাংবাদিক গোলাম সরোয়ার অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার হওয়ার পর জ্ঞান ফিরলে ‘মাইরেন না, আমি আর নিউজ করব না’ বলে বিলাপ করছিলেন।

রোববার (১ নভেম্বর) রাত পৌনে ৮টায় চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের বড় কুমিরা এলাকায় রাস্তার পাশে তাকে অজ্ঞান অবস্থায় পাওয়া যায়। স্থানীয় লোকজন জানান, অজ্ঞান অবস্থায় রাস্তার পাশে গোলাম সরোয়ারকে পাওয়ার পর স্থানীয়রা কুমিরার একটি দোকানে নিয়ে যায়।

উদ্ধারের পর পুলিশ এবং স্থানীয় সাংবাদিকরা তার সাথে কথা বলার চেষ্টা করলে তিনি সবার পা জড়িয়ে ধরার চেষ্টা করে শুধু বলতে থাকেন, ‘ভাই, আমারে মাইরেন না। আমি আর নিউজ করব না।’

সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক জানান, ‘কুমিরায় একটা লেকের পাশে উনাকে পাওয়া গেছে অক্ষত অবস্থায়। স্থানীয় চেয়ারম্যান বিষয়টি থানাকে জানিয়েছেন। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে নিয়ে আসে।’

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উদ্ধারের সময় গোলাম সরোয়ারের গায়ে সেন্ডো গেঞ্জি ও পরনে ছিল শুধু আন্ডারওয়্যার। স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে তাকে নিয়ে যান একটি ডেকোরেটরে। সেখানে তাকে দোকানের ফ্লোরে অচেতন অবস্থায় শুইয়ে রাখা হয়। সেখানে জড়ো হন অনেক লোক। হাজির হন পুলিশ, গণমাধ্যমকর্মীসহ অনেকে। এক পর্যায়ে গোলাম সরোয়ারকে স্থানীয় হাসপাতালে নেয়ার জন্য চেষ্টা করছিল স্থানীয় লোকজন। এ সময় সরোয়ার সবার পা জড়িয়ে ধরার চেষ্টা করে শুধু বলতে থাকেন, ‘ভাই, আমারে মাইরেন না। আমি আর নিউজ করব না।’

গোলাম সরোয়ার সাপ্তাহিক আজকের সূর্যোদয় পত্রিকার চট্টগ্রাম ব্যুরোর নিজস্ব প্রতিবেদক। গত বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে তিনি চট্টগ্রাম নগরের ব্যাটারি গলির বাসা থেকে বের হওয়ার পর নিখোঁজ হন। এ ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়। তার বাড়ি চন্দনাইশ উপজেলায়। তিনি চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সদস্য।

৭নং কুমিরা ইউনিয়নের ইউপি সদস্য আলাউদ্দিন জানান, উদ্ধার হওয়া ব্যক্তিকে অ্যাম্বুলেন্স থেকে খাল পাড়ে ফেলে দিতে দেখে স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তি তাকে উদ্ধার করে রাস্তার পাশে নূরুল আলমের ডেকোরেশনে রাখেন। তখন তিনি কিছুটা কথা বলতে পারছিলেন।

সারোয়ারকে উদ্ধারে সমাবেশ, পুলিশ কমিশনার কার্যালয় ঘেরাওসহ বিভিন্ন প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *