আগুন সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে হার্ডলাইনে সরকার ও আ.লীগ

image_pdfimage_print

সম্প্রতি রাজধানীর কয়েকটি স্থানে আগুন দিয়ে বাস পোড়ানোর ঘটনায় নড়ে চড়ে বসেছে সরকারের প্রশাসন ও আওয়ামী লীগ। ইতোমধ্যে সরকারের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে, সন্ত্রাসীকে ছাড় না দিতে। যে কোনো সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সরকার ও আওয়ামী লীগের অবস্থান পরিস্কার, কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।
এছাড়া আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সজাগ দৃষ্টি রাখতে নির্দেশ দিয়েছেন দলটির হাইকমাণ্ড। গত শুক্রবার রাতে গণভবনে দলটির স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভা সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
সভায় আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, জনগণ সন্ত্রাস চায় না, জনগণ শান্তি সমৃদ্ধি ও উন্নয়নের পক্ষে। যারাই আগুন সন্ত্রাস করুক না কেন কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। সরকার হার্ডলাইনে আছে।
সরকারের অবস্থান পরিষ্কার, যারাই জড়িত, থাকবে কোনো ছাড় নেই। এরা অতীতেও আগুন সন্ত্রাস করে জীবন্ত মানুষকে পুড়িয়ে মেরেছে। তাই দলের পক্ষ থেকে দলীয় নেতাকর্মীদের জনগণের কাছে নিজেদের অবস্থান ও জনমত গড়ে তুলতে হবে।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, জনগণকে সঙ্গে নিয়ে রাজধানীতে বাসে আগুনের ঘটনার মতো সব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের আওয়ামী লীগ দাঁতভাঙা জবাব দিতে প্রস্তুত। এ ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড কোনোভাবেই সহ্য করা হবে না।
আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, দেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা বিরাজ করছে। এই পরিস্থিতিতে দেশকে অস্থিতিশীল করতে বাস পোড়ানোয় বিএনপি ও তাদের দোসররা জড়িত, তা সহজেই অনুমেয়।
অতীতে কারা এভাবে বাস পুড়িয়েছে, পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে মানুষকে হত্যা করেছে, দেশবাসী জানে। অতীতের নাশকতা সরকার কঠোরহস্তে দমন করেছে। এবারও জনগণকে সঙ্গে নিয়ে কঠোরহস্তে দমনে সরকার বদ্ধপরিকর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *