আওয়ামী লীগের মেনিফেস্টো অনুযায়ী গ্রামকে শহরে রুপান্তরের কাজ এগিয়ে চলেছে: এলজিআরডি মন্ত্রী

image_pdfimage_print

সচিব, উপসচিবসহ কর্মকর্তাদের সঙ্গে মন্ত্রীর সমন্বয় না থাকলে দেশ উন্নয়নে কাজ করতে পারবে না মন্ত্রণালয় ।
দেশের ৫ সিটি করপোরেশনে স্থাপন করা হবে বর্জ্য দিয়ে বিদ্যুৎ তৈরির প্লান্ট।
শুধু করোনাকালীন ত্রাণ বিতরণে দুর্নীতির জন্য ২০৫ জনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।
আওয়ামী লীগ সরকারের দুই বছর পূর্তি ও তৃতীয় বছরে পদার্পণ উপলক্ষ্যে নিজ বাসভবনে তাজুল ইসলাম বলেন, গ্রামকে শহরে রুপান্তরের প্রথম পর্যায় হচ্ছে রাস্তা ঘাটের উন্নয়ন, চিকিৎসা, শিক্ষা, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি পৌঁছে দেওয়া। এগুলো সবই সাধারণ মানুষের কাছে ধীরে ধীরে পৌঁছে যাচ্ছে। এখানে বেশ কয়েকটি মন্ত্রণালয় মিলে কাজ করছে।
একটা টেকনিক্যাল কমিটির মাধ্যমে সারাদেশের গ্রামে কাজ করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। গ্রামের উন্নয়নে অবকাঠামোগত নকশা টেকনিকেল কমিটির মাধ্যমেই হতে হবে। রাস্তা-ঘাট, ব্রিজ কালভার্ট তৈরিতেও বিশেষজ্ঞদের মতামত নিতে হবে।
করোনার সময় দেশের সব জেলা উপজেলা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মেম্বররা কাজ করেছে। সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তারাও কাজ করেছে। বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্ববৃহত কাজ করেছে জনপ্রতিনিধিরা। এসময় দুর্নীতির দায়ে চূড়ান্ত অপসারণ ২, আদালতের স্থগিতাদেশ এনে দায়িত্ব পালন করছেন ২৮ ও ক্ষমা করা হয়েছে দুই জনকে। বাকি ১৭৩ জনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের মামলা চলমান।
বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের কাজটিও এগিয়ে চলেছে। ঢাকা দক্ষিণ, গাজীপুর, চট্টগ্রাম, খুলনা ও ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন এগিয়ে আসছে। এখান থেকে যে বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে তার প্রতি ইউনিট দাম হবে ১৮-২০ টাকা। এই বিদ্যুৎ কিনবে বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *